ইরাকের ১৭ হাজার প্রত্নতাত্ত্বিক নির্দশন ফেরত দেবে যুক্তরাষ্ট্র

ইরাকের সংস্কৃতিমন্ত্রী হাসান নাজিম জানিয়েছেন, দেশটিতে যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যে লুট হওয়া প্রায় ১৭ হাজার প্রত্মতাত্ত্বিক নিদর্শন ফেরত দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এই কথা জানান তিনি।
হাসান নাজিম বিবৃতিতে জানান, ওয়াশিংটনে রাষ্ট্রীয় দূতাবাসের সহায়তায় ইরাকি কর্তৃপক্ষের মাসের পর মাস প্রচেষ্টার ফল হিসেবে এই নিদর্শন ফেরত আসছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, ফেরত আসা এই নিদর্শনগুলো বেশিরভাগই সুমেরিয়ান যুগে বাণিজ্যিক লেনদেনের প্রমাণ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে সাক্ষাৎ শেষে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-কাজেমি বৃহস্পতিবার দেশে ফিরে যাওয়ার সময় এই প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো নিয়ে যাচ্ছেন বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে নাজিম বলেন, 'আমি আশা করি নিকট ভবিষ্যতে আমাদের বাকি সম্পদ বিশেষ করে ইউরোপ থেকে উদ্ধার করবো।'

ইরাকে ২০০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রাসনের পর ১৮ বছর যুদ্ধ ও সহিংসতা চলে আসছে দেশটিতে। গত সোমবার ওয়াশিংটনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে ইরাকি প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতের পর দেশটি থেকে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারের চুক্তি স্বাক্ষর করা হয়। চুক্তি অনুযায়ী এই বছরের শেষে ইরাক থেকে সব মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার করা হবে।

দীর্ঘ যুদ্ধে অস্থিরতার সুযোগে বিশ্বের প্রাচীনতম সভ্যতার কেন্দ্রভূমি এই দেশটির প্রত্নতাত্ত্বিক সম্পদ বিপুলভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যুদ্ধে দেশটির প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানসমূহে ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয় এবং বিভিন্ন জাদুঘরে সংরক্ষিত প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন লুট করা হয়।

বার্তা সংস্থা এএফপির কাছে এক সাক্ষাতকারে বসরা জাদুঘরের পুরাতত্ত্ব ও ঐতিহ্য বিষয়ক পরিচালক কাহতান আল-ওবায়েদ বলেন, 'এটি গণনা করা অসম্ভব যে প্রত্নতাত্ত্বিক স্থানসমূহ থেকে কী পরিমাণ সম্পদ লুট করা হয়েছে।'

ফেরত আসা ইরাকি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের মধ্যে সুমেরীয় ভাষায় লিখিত প্রাচীন মহাকাব্য গিলগামেশের ছত্র লিপিবদ্ধ তিন হাজার পাঁচ শ' বছরের পুরনো একটি কাদামাটির ফলক রয়েছে। এর আগে এটি ওয়াশিংটনের মিউজিয়াম অব বাইবেলে প্রদর্শনের জন্য রাখা হলেও ২০১৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের আদালত তা মিউজিয়ামটি থেকে বাজেয়াপ্ত করে নেয়।

সূত্র : টিআরটি ওয়ার্ল্ড

No comments

Theme images by PLAINVIEW. Powered by Blogger.