Header Ads

রমজান মাসেও দূর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে লিবিয়ার সেনাবাহিনী



ত্রিপোলি|

পবিত্র রমজান মাসে সন্ত্রাসী হফতারের বিরুদ্ধে দূর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে লিবিয়ার সেনাবাহিনী।  এসংবাদ জানিয়েছে তুরস্কের সংবাদমাধ্যম ওকালাতু আনবা'য়ি তুরকিয়া।

আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত লিবিয়ার  "ন্যাশনাল অ্যাকর্ড" সরকারের সাথে যুক্ত লিবিয়ার বুরকানুল গজব অপারেশনস রুম ঘোষণা করেছে যে খালিফা হাফতার বাহিনীর বিরুদ্ধে লিবিয়ার সেনাবাহিনী বেশ কয়েকটি ফ্রন্টে ভালো অগ্রগতি করেছে লিবিয়ার সেনাবাহিনী।

 সামরিক গণমাধ্যমের মুখপাত্র আবদুল-মালিক আল-মাদানী আজ, শুক্রবার "ওকালাতু আনবা'য়ি তুরকিয়া" কে একটি বিশেষ বিবৃতিতে বলেছেন, "আমাদের বাহিনীর একটি বৃহৎ আকারে হামলার পরে রাজধানী ত্রিপোলির দক্ষিণে মাশরূ অক্ষে নতুন কেন্দ্র এবং পর্যবেক্ষণকেন্দ্র দখল করা হয়েছে।"

 মাদানী আরও যোগ করেছে যে "আমাদের বিমান বাহিনী গতকাল থেকে আজ ভোর পর্যন্ত আক্রমণ চালিয়ে, ৩ টি সশস্ত্র যানবাহন এবং গোলাবারুদ সহ একটি সাইট ধ্বংস করেছে।"

তিনি আরো জানিয়েছেন মুরসিত উপত্যকায় সংঘর্ষে  একটি ভাড়াটে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর (জানজাওয়াইদ) ১০ সন্ত্রাসিকে নিধন করা হয়েছে এবং একটি সাঁজোয়া গাড়ি ধ্বংস করা হয়েছে । এছাড়া আল ওয়াতিয়া ঘাঁটিতে আরো একটি সন্ত্রাসী দলকে আক্রমণ করে,  ৫ জন সন্ত্রাসিকে হত‍্যা করা হয়েছে।   উক্ত ঘাঁটিতে  বিদ্রোহী মিলিশিয়াদের আরো একটি  জমায়েতে আক্রমণ করা হয়েছে। পাশাপাশি  তারহুনা শহরে   যাওয়ার পথে সন্ত্রাসীদের একটি জ্বালানী ট্রাক এবং দুটি সশস্ত্র যানবাহন ধ্বংস করা হয়েছে।

 ইতিপূর্বে এক বিবৃতিতে আল-মাদানি তুর্কি বিমান বাহিনীর প্রশংসা করে বলেছিলেন যে "তুরস্কের বিমানবাহিনীর একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে, কারণ এটি প্রতিদিন মিলিশিয়া এবং ভাড়াটে হাফতার সরবরাহ বিচ্ছিন্ন করতে এবং গোলাবারুদ স্টোর এবং অনেক লজিস্টিকাল সরঞ্জাম ধ্বংস করতে থাকে।"

 তুরস্ক সামরিকভাবে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত লিবিয়ার "ন্যাশনাল অ্যাকর্ড" সরকারী বাহিনীকে সমর্থন করে, বিশেষত লিবিয়ার রাজধানী, ত্রিপোলি থেকে প্রায় ৮৮ কিলোমিটার দূরে তরহুনা শহরকে মুক্ত করতে  এবং এখান থেকে "হাফতার" বাহিনীকে বহিষ্কার করার জন্য ১৮ ই এপ্রিল শুরু করা অপারেশনে তুরস্ক সহায়তা করছে।

©টি আর টি বাংলা ডেস্ক


No comments

Theme images by PLAINVIEW. Powered by Blogger.