ভারতে পরকীয়ার বৈধতা!🤓🤓🤓


পরকীয়া কোনো অপরাধ নয় বলে রায় দিলেন ভারতের সুপ্রিমকোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের মাননীয় বিচারপতিরা সম্ভবত তাদের পুরাণ ও সাহিত্যের ঐতিহ্যকে বৈধতা দেয়ার চেষ্টা করেছে! কারন রামায়ণ- মহাভারতে তো পরকীয়ার মিছিল দেখতে পাওয়া যায়। হিন্দু পুরাণ এবং সাহিত্যে আমরা দেখি কীভাবে সুপুরুষ রামচন্দ্রকে দেখে রাবণের বোন শূপর্ণখা কামার্ত হয়ে পড়েছিল, কিংবা মহাভারতে সুঠামদেহী অর্জুনকে দেখে কামার্ত হয়ে পড়েছিলো নাগ রাজকন্যা উলুপী, তাকে সরাসরি দিয়েছিলো দেহমিলনের প্রস্তাব –
‘হে পুরুষশ্রেষ্ঠ! আমি তোমাকে অভিষেকার্থ গঙ্গায় অবতীর্ণ দেখিয়া কন্দর্পশরে জর্জরিত হইয়াছি। এক্ষণে তুমি আত্মপ্রদান দ্বারা এই অশরন্য অবলার মনোবাঞ্ছা পরিপূর্ণ কর।’
মহাভারতের বহু নারী চরিত্রই বহুচারিনী এবং বহুগামিনী। পাঁচ স্বামী নিয়ে ঘর করা দ্রৌপদী তো আছেনই, তার পাশাপাশি সত্যকামের মাতা জবালা, পাণ্ডব জননী কুন্তী থেকে শুরু করে স্বর্গের অপ্সরা উর্বসী, রম্ভা সকলেই ছিলেন বহুপুরুষাসক্ত।
জানি না সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের কোনও রেট্রোস্পেক্টিভ এফেক্ট দেওয়া হয়েছে কিনা!
ওরকম কিছু বলা থাকলে
মহাভারতের কর্ণ এবার থেকে আর কখনই সূতপুত্র হিসাবে গণ্য হবেন না। রামায়ন বা মহাভারতে এমন অসংখ্য চরিত্র যাঁরা পরকীয়ার শিকার।
আজ থেকে তাহলে তাদের সকলের মুক্তি।
ভারতের সুপ্রিম কোর্ট হাজার বছর পর তাদের মুক্তি দিয়েছে!!!🤣🤣🤣
********************************************
বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ
পরকীয়া একটি মানসিক অসুখ।
🍁"দুশ্চরিত্রা নারীকূল দুশ্চরিত্র পুরুষকুলের জন্যে এবং দুশ্চরিত্র পুরুষকুল দুশ্চরিত্রা নারীকুলের জন্যে। সচ্চরিত্রা নারীকুল সচ্চরিত্র পুরুষকুলের জন্যে এবং সচ্চরিত্র পুরুষকুল সচ্চরিত্রা নারীকুলের জন্যে। তাদের সম্পর্কে লোকে যা বলে, তার সাথে তারা সম্পর্কহীন। তাদের জন্যে আছে ক্ষমা ও সম্মানজনক জীবিকা"।(সূরা নূর ২৬)
🍁"মুমিনদেরকে বলুন, তারা যেন তাদের দৃষ্টি নত রাখে এবং তাদের যৌনাঙ্গর হেফাযত করে। এতে তাদের জন্য খুব পবিত্রতা আছে। নিশ্চয় তারা যা করে আল্লাহ তা অবহিত আছেন"। (সূরা নূর ৩০)
🍁"ঈমানদার নারীদেরকে বলুন, তারা যেন তাদের দৃষ্টিকে নত রাখে এবং তাদের যৌন অঙ্গের হেফাযত করে"। (সূরা নূর ৩১)
🍁"আর তোমরা ব্যভিচারের কাছেও যেও না।" (সূরা বনি ইসরাইলের ৩২)
🍁‘যে ব্যক্তি মুখ ও লজ্জাস্থানের হেফাজতের জামিনদার হবে আমি তার বেহেশতের জামিনদার হবো।’ (বুখারি)

কৃতজ্ঞতায়ঃ মোহাম্মাদ কাওসার আহমেদ
প্রক্টরঃ আন্তর্জাতিক ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম 

No comments

Theme images by PLAINVIEW. Powered by Blogger.